Independence Day Speech: আজকের দিনে কীভাবে দেবেন বক্তৃতা? রইল টিপস

Independence Day Speech: ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন থেকে ভারতের স্বাধীনতার 76 বছর। ত্যাগ ও সংকল্পের জেরে আজ স্বাধীন ভারত। তাই পড়ুয়া কিংবা শিক্ষক হিসাবে, দেশের জন্য প্রত্যেক প্রাণদাতার ত্যাগকে সম্মান জানানোর…

Written by Laxmishree Banerjee

Published on:

Independence Day Speech: ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন থেকে ভারতের স্বাধীনতার 76 বছর। ত্যাগ ও সংকল্পের জেরে আজ স্বাধীন ভারত। তাই পড়ুয়া কিংবা শিক্ষক হিসাবে, দেশের জন্য প্রত্যেক প্রাণদাতার ত্যাগকে সম্মান জানানোর উপায় হিসেবে যে সুযোগগুলো এসে থাকে, তার সর্বোচ্চ ব্যবহার করাও একটি দায়িত্বই বটে। এই বছর 15ই আগস্ট 2023-এ, ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব 2023’ হিসাবে স্কুলের অনুষ্ঠানে তাই বক্তৃতা কী দেবেন, তা নিয়ে অনেকেই চিন্তিত। সে চিন্তাই দূরীকরণে Examtrend.in নিয়ে এসেছে Independence Day Speech।

স্বাধীনতা দিবসে বক্তৃতা দেওয়ার নিয়ম

প্রতিষ্ঠান, স্কুল এবং কলেজগুলি চলতি বছর ‘জাতি প্রথম, সর্বদা প্রথম’ থিম সহকারে স্বাধীনতার দিনটিকে স্মরণ করার জন্য প্রস্তুত। যদিও ভারতের স্বাধীনতা এবং তার মুক্তিযোদ্ধারা যে সংগ্রামের মুখোমুখি হয়েছিলেন, সে সম্পর্কে কথা বলার মতো অনেক কিছুই রয়েছে, তবুও আপাতত বাংলায় 77 তম স্বাধীনতা দিবস সম্পর্কে কথা বলার জন্য নিম্নলিখিত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলিই বেছে নেওয়া ভালো। নিজের পরিচয় দিয়ে ভাষণের শুরুটা হউক এইভাবে (Independence Day Speech)।

স্বাধীনতা দিবস প্রতি বছর 15ই আগস্ট পালিত হয়, এইদিন ভারত প্রায় 200 বছরের ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন থেকে স্বাধীনতা লাভ করেছিল।

এই বিশেষ দিনটি কেবল অতীতের উদযাপন নয়। এটি স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের চেতনাকে সারা জীবন ভারতীয়ের হৃদয় ও মনে দেশপ্রেমের উদ্দীপনা জাগিয়ে তোলে।

ভারতমাতার বিপ্লবীদের ত্যাগ ও সংগ্রামকে স্মরণ করার জন্য, এইদিন ভারতের নাগরিকরা পতাকা উত্তোলন করেন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

ভারতের তরুণ প্রজন্মকে উৎসাহিত করতে, ভবিষ্যতে তাঁদের দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে, শিশুদের ভারতীয় স্বাধীনতা, স্বাধীনতা সংগ্রাম, দেশপ্রেম, ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামী, ইতিহাস জানাতে স্বাধীনতা দিবসে উদযাপন অনস্বীকার্য (Independence Day Speech)।

আরও পড়ুন: টানা 12 দিন বন্ধ থাকবে স্কুল ও ব্যাংক! দেখুন সম্পূর্ণ তালিকা

স্বাধীনতা দিবসে ছোটদের জন্য বক্তৃতা দেওয়ার নিয়ম

উল্লেখ্য, অনেকসময় ছোটরাও স্বাধীনতা দিবসে স্কুলে গিয়ে বেশ কিছু বিশেষ বক্তব্যও রেখে থাকে। তাই তাদের সাহায্যার্থেও দেওয়া হল বেশ কিছু দারুণ টিপস। নিজের পরিচয় দিয়ে ভাষণের শুরুটা হউক এইভাবে (Independence Day Speech)।

শুভ সকাল। আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষক এবং প্রিয় বন্ধুদের 77 তম স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা। আজ যখন 77 তম স্বাধীনতা দিবসে এক স্বাধীন জাতির অংশ হতে পেরে আমাদের গর্ব বোধ হয়। কারণ আজ আমাদের বাক স্বাধীনতা রয়েছে এবং আমাদের নিজস্ব উপায়ে জীবনযাপন করার স্বাধীনতাও রয়েছে। আর এই লাভের পিছনে যেসমস্ত ভগবান তুল্য ব্যক্তি যেমন নেতাজি, গান্ধীজি, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ক্ষুদিরাম বসুদের প্রাণ রয়েছে, তাঁদেরও প্রণাম।

1947 সালের 15ই আগস্ট ভারত স্বাধীনতা লাভ করে। এই দিনটিতেই ভারত প্রায় 200 বছর ধরে ব্রিটিশদের শাসন থেকে আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের অবিরাম সংগ্রামের পর স্বাধীন হয়েছিল। এই দিনে, আমাদের প্রথম প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু দিল্লির লাল কেল্লায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও উত্তোলন করেছিলেন। তারপর থেকে আমরা প্রতি বছর প্রতিটি সরকারি দপ্তর, স্কুল, কলেজে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করছি। সুতরাং, আজকের এই বিশেষ দিনে আসুন আমরা নিজেদের কাছে প্রতিজ্ঞা করি যে ভ্রাতৃত্ব বজায় রেখে, সবাইকে সাহায্য করে এবং নিজেদেরকে শিক্ষিত করে আমরা সর্বদা আমাদের দেশকে রক্ষা করব (Independence Day Speech)।

এই ধরনের আরও আপডেট পেতে ফলো রাখুন আমাদের ফেসবুক পেজকে