SIP: সন্তানের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করতে চান! জানেন, মাত্র 200 টাকা বাঁচিয়ে পেতে পারেন 30 লক্ষ টাকারও বেশি, রইল পুরো হিসাব

কিন্তু এখান থেকে বড় রিটার্ন পাওয়ার সম্ভাবনাও ভালো থাকে। অনেক মিউচুয়াল ফান্ড স্কিম গত কয়েক বছরে ভালো রিটার্ন দিয়েছে। দেশের অনেকেই এখন কিছুটা ঝুঁকি নিয়ে বিনিয়োগের এই বিকল্প গ্রহণ করছেন। এখান থেকে আপনি যেকোনো ছোট সঞ্চয় স্কিম বা ফিক্সড ডিপোজিট স্কিমের চেয়ে বেশি রিটার্ন পেতে পারেন।

Written by Laxmishree Banerjee

Published on:

SIP: আপনিও কি আপনার সন্তানদের ভবিষ্যত সুরক্ষিত করার জন্য একটি ভাল স্কিম খুঁজছেন, যেখান থেকে ভাল আয় পেতে পারে? এমন পরিস্থিতিতে, আজ আমরা আপনাকে মিউচুয়াল ফান্ড সম্পর্কেই কিছু বলব। মিউচুয়াল ফান্ড বিনিয়োগ কিছুটা ঝুঁকির বিষয়। কিন্তু এখান থেকে বড় রিটার্ন পাওয়ার সম্ভাবনাও ভালো থাকে। অনেক মিউচুয়াল ফান্ড স্কিম গত কয়েক বছরে ভালো রিটার্ন দিয়েছে। দেশের অনেকেই এখন কিছুটা ঝুঁকি নিয়ে বিনিয়োগের এই বিকল্প গ্রহণ করছেন। এখান থেকে আপনি যেকোনো ছোট সঞ্চয় স্কিম বা ফিক্সড ডিপোজিট স্কিমের চেয়ে বেশি রিটার্ন পেতে পারেন।

এর জন্য আপনাকে একটি ভালো মিউচুয়াল ফান্ড স্কিম নির্বাচন করতে হবে। আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন, তাহলে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে আপনি একটি ভালো মিউচুয়াল ফান্ড স্কিমে আপনার SIP করতে পারেন। এক্ষেত্রে প্রতিদিন 200 টাকা বিনিয়োগ করলে 15 বছরে আপনি 30 লক্ষ টাকা পর্যন্ত রিটার্ন পাবেন।

আরও পড়ুন: এবার থেকে Aadhaar Card ব্যবহার করতে গেলেই লাগবে টাকা! কী বলছে নতুন নিয়ম?

কীভাবে 30 লক্ষ টাকা রিটার্ন পাবেন?

SIP করার পরে, আপনাকে প্রতিদিন 200 টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। আপনাকে পুরো 15 বছরের জন্য এই বিনিয়োগ করতে হবে। শুধু তাই নয়, আপনাকে আশা করতে হবে যে আপনি আপনার বিনিয়োগে প্রতি বছর আনুমানিক 12 শতাংশ রিটার্ন পাবেন। যদি এমনটা হয়। তাহলে আপনি মেয়াদপূর্তির সময়ে সহজেই 30 লক্ষ টাকা পেতে পারেন। এই টাকা দিয়ে আপনি আপনার সন্তানদের উচ্চশিক্ষাও দিতে পারবেন।

আপনি যদি প্রতি বছর 12 শতাংশ গড় রিটার্ন পান, SIP ক্যালকুলেটর অনুযায়ী, 15 বছরে আপনার মোট বিনিয়োগ হবে 10,80,000 টাকা (10.8 লাখ টাকা)। 15 বছর পর, আপনার 19,47,456 টাকা (19.50 লক্ষ টাকা) মূলধন লাভ হতে পারে, যেখানে আপনার মোট ম্যাচুরিটির পরিমাণ 30,27,456 টাকা (30.3 লক্ষ) অনুমান করা হয়।

মনে রাখবেন, মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করা অর্থ বাজারের ঝুঁকির বিষয়। এতে বিনিয়োগ করার আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিন। আপনি যদি না জেনে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করেন। এই অবস্থায় আপনাকে বড় ক্ষতির সম্মুখীন হতে হতে পারে। মিউচুয়াল ফান্ডে করা বিনিয়োগের আয় বাজার আচরণ দ্বারা নির্ধারিত হয়।