TET Fake Appointment letter: ফের ভুয়ো নিয়োগপত্র দেখিয়ে স্কুলে যোগ দেওয়ার চেষ্টা, আবারও কি শুরু দালাল চক্রের বাড়বাড়ন্ত?

TET Fake Appointment letter: নকল নিয়োগপত্র দেখিয়ে চলছে স্কুলে শিক্ষকতার চাকরি করার চেষ্টা। ভাবভঙ্গি, ডকুমেন্টস দেখে বোঝা দায় প্রার্থী আসল নাকি নকল। নিয়োগ দুর্নীতিকে কেন্দ্র করে গত বছরেই তোলপাড় হয়ে…

Written by Laxmishree Banerjee

Published on:

TET Fake Appointment letter: নকল নিয়োগপত্র দেখিয়ে চলছে স্কুলে শিক্ষকতার চাকরি করার চেষ্টা। ভাবভঙ্গি, ডকুমেন্টস দেখে বোঝা দায় প্রার্থী আসল নাকি নকল। নিয়োগ দুর্নীতিকে কেন্দ্র করে গত বছরেই তোলপাড় হয়ে চলা রাজ্য রাজনীতিতে আবার কি নতুন দালাল চক্রের সংযোজন। উঠছে একাধিক প্রশ্ন। ইতিমধ্যেই এমন জালিয়াতি কান্ডে গ্রেফতারও করা হয়েছে 4 ব্যক্তিকে। স্বাভাবিকভাবেই শোরগোল শুরু রাজ্য জুড়ে।

সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায়। পাথরপ্রতিমা, কাকদ্বীপ এবং বাসন্তীর স্কুলে এই ভুয়ো নিয়োগের অভিযোগ তোলা হয়েছে বলে খবর। জানানো হয়েছে, গত 16 অক্টোবর পাথরপ্রতিমার মহেশপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার কাজে যোগ দিতে আসেন এক ব্যক্তি। যথারীতি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের স্ট্যাম্প সহ ভুয়ো নিয়োগপত্রটি তিনি তুলে দেন প্রধান শিক্ষকের হাতে। যা দেখে সন্দেহ হয় তাঁর। এবং
তারপরে জানতে পারেন নিয়োগপত্রটি আসলে ভুয়ো। এরপর পুলিশ আসার আগেই ওই চাকরিপপ্রার্থী স্কুল থেকে পালিয়ে যান।

আরও পড়ুন: দীপাবলীর আগেই বড় সুখবর, একেবারে বিনামূল্যে রেশন ঘোষণা মোদী সরকারের! শুধুমাত্র আপনাকে করতে হবে এই কাজ

একইরকম ঘটনা ঘটেছে কাকদ্বীপ, বাসন্তীর স্কুলেও। সেখানেও ভুয়ো নিয়োগপত্র হাতে 3 প্রার্থী হাতেনাতে ধরা পড়েন। যদিও তাঁরা নিজেদেরই প্রতারণা শিকার বলে দাবি করছেন। সামনে আসছে সেই একই মন্তব্য। টাকা নিয়ে সরকারি চাকরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। এরপর প্রার্থীরা টাকা দিলে এই নিয়োগ পত্র হাতে তুলে দেওয়া হয়। তাঁরা ওই পত্রটিকে সত্য ভেবে যথারীতি স্কুলে নিয়ে আসেন এবং ফেঁসে যান। কারণ ওই প্রার্থীরা নাকি নিজেরাই জানতেন না যে নিয়োগপত্রটি ভুয়ো।

আসলে 2009 সালে লিখিত পরীক্ষা নিয়েছিল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ। এরপর আগের বছরের নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে কেলেঙ্কারির পর অবশেষে আসল নিয়োগপত্র সামনে জারি করে সংসদ। গত সেপ্টেম্বর মাস থেকে মোট 1506 জন সফল প্রার্থী এই নিয়োগপত্র পেয়েছেন। যথারীতি তাঁরা শিক্ষকতার কাজে যোগও দিতে শুরু করেছেন নিত্যদিন। তাই আশঙ্কা করা হচ্ছে, এরই মাঝে ফের মাথাচারা দিয়ে উঠতে শুরু করেছে নিয়োগ দুর্নীতি। সবটা নিয়েই ফের তদন্তও শুরু হয়েছে।

এই ধরনের আরও আপডেট পেতে ফলো রাখুন আমাদের ফেসবুক পেজকে